“ইন্টারনেট সংযোগ গ্রহন ও ব্যবহার এর নিয়মাবলী

প্রয়োজনীয় কাগজপত্রঃ

  • প্রত্যেক সতন্ত্র ব্যবহারকারী এক কপি পাসপোর্ট সাইজ ফটো,জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি,প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে বৈধ ট্রেড লাইসেন্স এর কপি কোম্পানির সিল মোহর সহ,বিদেশী গ্রহীতা তাদের পাসপোর্টের ফটোকপি প্রদান করিবেন।
  • ১৮ (আঠারো) বছরের নিচে ব্যবহারকারিদের ক্ষেত্রে চুক্তিপত্রে অবশ্যই বৈধ অভিভাবকের সাক্ষর থাকতে হবে।

পেমেন্ট এর নিয়মঃ

  • নির্ধারিত পরিমাণ সার্ভিস চার্জ প্রদান করে নতুন সংযোগ গ্রহন করতে হবে যা অফেরত যোগ্য।
  • প্রতি মাসের বিল মাসের শুরুতেই অর্থাৎ অগ্রীম প্রদান করতে হবে।
  • ২য় পক্ষ সংযোগ নেওয়ার সময় সম্পূর্ন বিল (সার্ভিস চার্জ এবং অগ্রিম মাসের বিল ) একসাথে প্রদান করবেন।
  • প্রতি মাসের ইন্টারনেট বিল অবশ্যই প্রতি মাসের ১ -১০ তারিখের মধ্যে পরিশোধ করতে হবে। অন্যথায় সংযোগটি সাময়িকভাবে বিচ্ছিন্ন করা হবে।সংযোগটি পূনরায় চালু করতে চাইলে উক্ত মাসের সম্পূর্ণ বিল পরিশোধ করতে হবে।
  • আপনার সংযোগটি এক স্থান থেকে অন্য স্থানে স্থানান্তরিত করতে চাইলে ৩০০/- সার্ভিস চার্জ প্রদান করতে হবে। যদি অতিরিক্ত সরঞ্জামাদির প্রয়োজন হয় তবে অতিরিক্ত চার্জ প্রযোজ্য হবে।
  • সরকারী প্রযোজ্য নিয়ম অনুযায়ী ২য় পক্ষ অবশ্যই ১৫% ভ্যাট/ ট্যাক্স ইত্যাদি প্রদান করবেন।
  • ১ম পক্ষ যে কোন সময় যে কোনো ধরনের ফি,নবায়ন ফি,মাসিক বিল,সংযোগ ফি কমানো বা বাড়ানোড় ক্ষমতা সংরক্ষন করে।
  • প্রাকৃতিক বা অন্যান্য দুর্যোগের কারনে সংযোগে বিগ্ন ঘটলে ১ম পক্ষ দায়ি থাকিবে না। যদি কোন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে তাহলে ২য় পক্ষের মাসিক বিলের ক্ষেত্রে কোন প্রকার ছাড়ের দাবি গ্রহনযোগ্য হবে না।

বিক্রয় পরবর্তী সেবাঃ

  • অফিস চলাকালীন সময় কাস্টমার সার্ভিস প্রদান করা হবে (সময়ঃ সকাল ১০.০০ টা থেকে সন্ধ্যা ৭.০০ টা ) এছাড়া সকাল ৯.০০ থেকে রাত ১০.০০ টা পর্যন্ত মোবাইল ফোনে সেবা প্রদান করা হবে।
  • বিল জনিত সমস্যা,স্পীড কমানো/বাড়ানো,সক্রিয় কানেকশন সাময়িকভাবে বন্ধ করতে চাইলে অথবা যে কোন প্রকারের অভিযোগের জন্য হটলাইন ব্যতিত অন্য কোন নাম্বারের ফোন গ্রহনযোগ্য নহে।
  • হাই ভোল্টেজ,বজ্রপাত,প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারনে সংযোগ বিচ্ছিন্ন থাকলে ১ম পক্ষ দায়ী থাকবে না। রক্ষনাবেক্ষন ও সংস্কারের ক্ষেত্রে যথেষ্ট সময় লাগতে পারে। এই ক্ষেত্রে ২য় পক্ষ মাসিক বিলের ক্ষেত্রে কোন প্রকার ছাড় দাবী করতে পারবে না।

গ্রহীতার দায়দায়িত্বঃ

  • ২য় পক্ষ তার নিজ দায়িত্বে তার তথ্যসমূহের নিরাপত্তা নিশ্চিত করিবেন। কোন প্রকার তথ্য হারালে বা চুরি হয়ে গেলে ১ম পক্ষ এজন্য কোন প্রকার দায়দায়িত্ব বহন করিবে না।
  • গ্রহীতার প্রান্তে কোন ডিভাইজ বা যন্ত্র নষ্ট বা পুড়ে গেলে ১ম পক্ষ এর জন্য কোন প্রকার দায়দায়িত্ব বহন করিবে না। উচ্চ ভোল্টেজ বাবজ্রপাত  নেটওয়ার্কিং তারের মাধ্যমে প্রবেশ করে কম্পিউটার বা নেটওয়ার্ককে ক্ষতিগ্রস্থ করতে পারে। এক্ষেত্রে ২য় পক্ষ তার কম্পিঊটারকে সুরক্ষা রাখার ব্যবস্থা নিজেই গ্রহণ করিবেন এবং পুনঃ সংযোগের খরচ ও ২য় পক্ষ বহন করিবেন।
  • ১ম পক্ষের নিকট থেকে লিখিত অনুমতি ব্যতীত ২য় পক্ষ তার সংযোগকৃত কম্পিউটার ব্যতিত অন্য কাউকে সংযোগ প্রদান করিতে বা শেয়ার করে অন্য কোন কম্পিউটা্রে এই সংযোগ প্রদান করিতে পারিবেন না। এ নিয়মের ব্যতিক্রম হলে ১ম পক্ষ ২য় পক্ষকে জরিমানা করিবেন এবং জরিমানার পরিমাণ ১ম পক্ষ নির্ধারন করিবেন।

সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার নিয়মঃ

  • আপনার সংযোগটি সাময়িকভাবে কিংবা স্থায়ীভাবে বিচ্ছিন্ন করতে চাইলে ১ মাস আগে আমাদেরকে অবগত করতে হবে।
  • সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার ক্ষেত্রে অর্ধমাস / দিন বিল প্রযোজ্য নয়।
  • সংযোগটি ১ মাসের অধিক বিচ্ছিন্ন থাকলে সেক্ষেত্রে ১ম পক্ষ ক্যাবল খুলে নিয়ে আসবে।
  • চলতি মাসে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা যাবে না,ক্ষেত্র বিশেষে চলতি মাসের সম্পূর্ন বিল প্রদান করতে হবে।
  • ২য় পক্ষের নিকট কোন বকেয়া থাকিলে তা আদায়ে ১ম পক্ষ আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহন করিতে পারিবেন। এ ক্ষেত্রে ২য় পক্ষ সমুদয় খরচ বহন করিবেন।

অন্যান্যঃ

  • ইহা আশা করা হয় যে,২য় পক্ষ অবশ্যই ইন্টারনেট ব্যবহার দ্বারা কোন অন্যায় বা বেআইনী কাজ করিবেন না,যা সরকারের নিয়ম পরিপন্থি বলে গণ্য হয় এরুপ কাজের জন্য ২য় পক্ষ নিজে সমুদয় দায়দায়িত্ব বহন করিবেন।
  • গ্রহীতা সংযোগের জন্য যা যা প্রয়োজন তাহার ব্যবস্থা করিবেন এবং সমুদয় ব্যয় ভার বহন করিবেন। সংযোগ চুক্তি বাতিল হলে ১ম পক্ষ ২য় পক্ষের কম্পিউটারকে পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে দেবার কোন প্রকার দায়িত্ব বহন করিবে না।